Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
বাংলাদেশ, , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯

“শৈশব, ভালোবাসা ও বঙ্গবন্ধুর প্রেম” রাসেল আহম্মেদ বাবু

সিএনবি ডেস্ক  ২০১৯-০৬-০১ ০৮:০৬:৫৭  

যখন ছোট ছিলাম বেশ বোকা ছিলাম। ভাবতাম দেশের জন্য কিছু করতে হলে বুঝি রাজনীতি করতে হয়। সম্ভবত সপ্তম/অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র থাকতেই মিছিল মিটিং করে বেড়াতাম। তবে কখনোই নেতা হবার স্বপ্ন দেখিনি। এর পরে নেতার পেছনে লক্ষ্যহীন ছুটে চলেছি। তখন বয়সে ও উচ্চতায় ছোট হয়েও, মিছিলের পেছনে থেকেও “জয়বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু” স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করেছি রাজপথ। আওয়ামীলীগের রক্ত গায়ে থাকলে বুঝি এমনই রাজনীতি করতে হয়।
২০০৮ সালের নির্বাচনের আগ মুহুর্ত। বিদায়ী তত্ত্ববধায়ক সরকার হিসাবে সামরিক সরকার তখনও অর্ধেক ক্ষমতায়। সম্ভবত সপ্তম বা অষ্টম শ্রেণীতে পড়া ছাত্র মন দিয়ে নির্বাচন করার চেষ্টা করেছি। পোস্টার মেরেছি মিছিল করেছি নৌকা মার্কার লিফলেট নিয়ে ঘরে ঘরে ক্যানভাস করেছি এলাকার বড় ভাইদের সাথে (ছোট হয়ে যতটুকু সাধ্য)। একটু আধটু সামরিক সরকারের ক্ষমতার অপব্যবহার করেছি। বয়স কম রক্ত গরম হলে যা হয়। একদিন এক বড় ভাই বলল এগুলো করিস না। ক্ষমতায় আওয়ামীলীগ না আসলে বুঝবি ক্ষমতা কি জিনিস। কিন্তু বিড়ালের দোয়ায় সিক্কা ভাঙ্গেনা প্রবাদ খানা বাস্তব রুপ নিল। আলহামদুলিল্লাহ্‌ ক্ষমতায় বিপুল ভোটে আওয়ামীলীগ জয়ী হল। কিন্তু আনন্দের জোয়ারে বাসতে বেশি দেরি হয়নি। ২৯ ডিসেম্বর রাত নয়টার পর থেকেই বিজয় নিশান কি বুঝতে শুরু করেছি। সারাদিন ভোট কেন্দ্রে কেবল নৌকা আর নৌকা। বুকে নৌকা মুখে নৌকা। সার্থক হয়েছে স্বাধীনতার স্বপক্ষে থাকা দলটি। অথচ ফলাফল ঘোষনার পরপরই মোটা গলার বিএনপির নেতাদের গলা চিকন হতে শুরু করে। আমার স্পষ্ট মনে আছে সেদিন আমি টেলিভিশন এর সামনে একা একা কান্নাস্নাত খুশিতে হাসছিলাম। কোন কারন ছাড়াই একেবারে বাচ্চাদের মতো। তখন বুঝতে পারিনি কেন হাসছি কেন এত খুশি, কার জন্য হাসছি। ভেবেছিলাম হয়তো বাংলাদেশই জিতে গেছে। নৌকা মার্কা আমাকে ভাত দেয় না। আওয়ামীলীগ আমার বাড়ীর বাজার করে দেয় না। তারপরও কি অকৃত্রিম ভালো লাগায় শেখ মুজিবের মার্কাটাকে আপন করেছি।
সেদিনের সেই জয়ের স্মৃতি টুকুই সম্বল। নৌকার প্রতি সেই অকৃত্রিম নি:স্বার্থ ভালোবাসাই এখনো ধারণ করে আছি। নতুন কোন সুখের স্মৃতি নেই। এখনো হয়তো নৌকা নির্বাচনে জয়ী হয়, ক্ষমতায় যায় তবে কেন জানি মনে হয় এই নৌকা ১৪/১৫ বছরের অবুঝ সেই বালকের কান্নাস্নাত হাস্যউজ্জ্বল নৌকা নয়। এই নৌকার মাঝি বঙ্গবন্ধু নয়!

লেখক: রাসেল আহম্মেদ বাবু

ছাত্রনেতা

মন্তব্য করুন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন


ফেইসবুকে আমরা

বিজ্ঞাপন