Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

রবিবার, ১৯ মে ২০১৯, ১১:৪২ অপরাহ্ন

Our Mail Address: [email protected]
শিরোনাম :
যানজটে শীর্ষে রামু চৌমুহনীর এই গোল চত্বর শিক্ষক ও পেশাজীবীদের সামাজিক সংগঠন “ডিঙি ফাউন্ডেশন” এর ইফতার পার্টি সম্পন্ন। বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি হলেন ইকবাল হোছাইন বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদের কক্সবাজার জেলা সভাপতি তারেকুল ইসলাম শামীম। একজন প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা ও পাহাড়তলীর অজানা ইতিহাস! নড়াইলে মাশরাফির স্ত্রীর ব্যস্ত সময় শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ কক্সবাজারে রোবট অলিম্পিয়াডের এক্টিভেশন কর্মশালা আগামীকাল খরুলিয়ার নির্যাতিত পরিবারের প্রশ্ন: ‘আর কতো নির্যাতিত হলে আমরা বিচার পাবো?’ কউকের উচ্ছেদ অভিযান প্রশ্নবিদ্ধ হলে; ৩৬কোটি টাকার প্রকল্প কাজ ব্যাহত হবে!
ফুটবল বিশ্বে প্রথম ১০০ মিলয়নের প্রস্তাব এবং ভিন গ্রহনের প্রানী খেতাব যার ক্রীড়াঙ্গনের আলোচনা সমালোচনায় -কক্সবাজার নিউজ বিডি

ফুটবল বিশ্বে প্রথম ১০০ মিলয়নের প্রস্তাব এবং ভিন গ্রহনের প্রানী খেতাব যার ক্রীড়াঙ্গনের আলোচনা সমালোচনায় -কক্সবাজার নিউজ বিডি

হাছিব হোছাইনঃ

একের পর এক সেভ দিয়ে ডিয়েগো লোপেজ তখন মাদ্রিদিস্তাদের চক্ষুশূলে পরিনত হয়ে গেছেন। কিন্তু রাগটা যে সেভাবে করা যাচ্ছে না কারণ ডিয়েগো লোপেজ যে মাদ্রিদ একাডেমী থেকেই উঠে আসা প্লেয়ার।

  • বার্নাবিউতে উপস্থিত ৮০ হাজার দর্শকের গগনচুম্বী চিৎকারেও কি এতটুকু বুক কাপছে না লোপেজের ?
  • একটুও কি আবেগ কাজ করছে না তার সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে যেখানে তিনি বেড়ে উঠেছেন?

এটাই মনে হয় প্রফেশনালিজম। রিয়াল মাদ্রিদের মাদ্রিদের ডাগ আউটে বসা কোচ মৌরিন হোর কপালে ভাজ। বার্সা যে ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছে তার উপর নিজের ঘরের ম্যাচে যদি হোচট খান তবে যে ভুলতে বসা লীগ জেতাটা যে এবারেও আরাধ্যই থেকে যাবে। কি মনে করে দারুন খেলতে থাকা ডি মারিয়াকে উঠিয়ে নামিয়ে দিলেন আট নাম্বার জার্সি পরা এক শুভ্র ঝাকড়া চুলের লোককে। গোলবারে দাঁড়ানো ক্যাসিয়াস বলটা ছুড়ে দিলেন মিডে দাঁড়ানো জাবির দিকে আর জাবি সেটা সরাসরি দিলেন অপনেন্ট ডি বক্সের সামনে দাঁড়ানো ঐ আট নাম্বার জার্সি পড়া লোকটার দিকে আর বা পায়ের রিসিভে ডান পায়ের নিখুঁত শুটে ডিয়েগো লোপেজকে বোকা বানিয়ে দারুন এক গোল আর এরপরে উপরে দুই হাত তুলে চিরাচরিত ভাবে ভাবে ঈশ্বরের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন। এরপরে আরো একটা গোল করেছিলেন আর রেফারি শেষ বাশি বাজানোর সাথে স্কোর লাইন রিয়াল মাদ্রিদ ৩-১ ভিলারিয়াল।

 

ম্যাচ শেষে ভিলারিয়াল ড্রেসিংরুমে যান আট নাম্বার জার্সি পরা ঐ লোকটা আর লোপেজের সাথে দেখাও করেন। লোপেজের পিঠ চাপড়ে দেন আর নিজের করা দু গোলের জন্যে সমবেদনাও জ্ঞাপন করেন। তাদের দুজনের ড্রেসিংরুমের এই আলাপন সোসাল মিডিয়ায় আসলো কিভাবে?

ডিয়েগো লোপেজেই যে টুইট করে জানিয়েছেন আর এও বলেছেন ফুটবল যদি ভদ্রলোকের খেলা হয় তবে ঐ আট নাম্বার জার্সির লোকটা সেই ভদ্রলোক। ও আচ্ছা নামই তো বলা হলো না। আট নাম্বার জার্সির লোকটার নাম রিকার্ডো কাকা

               রিকার্ডো কাকা

চ্যাম্পিয়ন্স লীগের সেমি ফাইনালে দ্বিতীয় লেগে এসি মিলান খেলতে গিয়েছে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টারে। প্রথম লেগে এসি মিলানের ঘরের মাঠ স্যানসিরোতে হারের পড়ে ইংলান্ড চ্যাম্পিয়ন্সদের ফাইনালে যাবার পথ একটু দুর্গমই ছিলো। ম্যাচের এক পর্যায়ে বল নিয়ে ছুটতে থাকা কাকাকে একটু রাফ ট্যাকেলই করে ফেলেন ম্যাঞ্চেষ্টার ইউনাইটেডের কিংবদন্তী খেলোয়াড় রায়ান গিগস। পড়ে যান কাকা আর উঠেই তেড়ে এসে টুটি চেপে ধরেন গিগসের। গিগি যেন একটা ঘোরের মধ্যে ছিলেন। গিগির ভাষ্য এমন ছিলো আমার জানামতে কাকা একজন ধার্মিক লোক ছিলেন কিন্তু খেলার মাঠে এসব কারোই খেয়াল থাকে না উত্তেজনার বশে অনেক কিছুই ভুলে যাই আমরা তবে কাকার এমন ভুল হতে পারে এটা আমার বিশ্বাস ছিলো না। ম্যাচটা হেরেও গেছে ম্যাঞ্চেষ্টার ইউনাইটেড আর স্বভাবতই গিগসের মনও খারাপ। সে যখন ড্রেসিংরুমে ফিরছিলো সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা কাকাকে দেখে হয়তো রাগটা আরো বেড়ে যাবারই কথা তার। একেতো এই কাকার কাছেই ম্যাচ হেরেছে তার উপর মাঠের ঐ ইন্সিডেন্ট। কাকা তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা গেনারো গাত্তুসুকে পাঠান গিগসের সাথে কথা বলতে কারন কাকার ইংলশ ভাষা তখন জানা ছিলো না। কাকার সাথে গিগসের কথার দোভাষী হিসেবেই গাত্তুসুকে নিয়ে আসেন কাকা। গাত্তুসু গিগসকে বলেন কাকা তার আচরনের জন্যে ক্ষমা চাচ্ছেন। গিগস খুব অবাকই হলেন আর ভদ্রতার হাসি দিলেন। কাকা তাকে জড়িয়ে ধরেন। টুইট করে গিগস বলেন কাকার মত নিপাট ভদ্রলোক তিনি তার ফুটবল ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়জন দেখেননি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাথে কাকার খেলার ধরন দেখে ব্রিটিশ মিডিয়া ফলাও করে একটা নিউজ প্রকাশ করে কাকা নিষিদ্ধ কোন ড্রাগ নিয়েছিলেন কি না এজন্যে তাকে মেডিকেল চেক করা হোক!!

এর প্রতিবাদে গেজেত্তো দেল স্পোর্টসের সাংবাদিক এন্তোনিও ব্রজেত্তি বলেন কাকার ডোপ টেষ্টের দরকার নেই বরং তার ডি এন এ টেষ্ট করা হোক। তাতেই দেখা যাবে সে এই গ্রহের নাকি ভিনগ্রহের। ফুটবলে ভিনগ্রহের খেলোয়াড় উপধি পাওয়া তিনিই প্রথম। রিয়াল মাদ্রিদের উথান পতনের পরে রিকার্ডো কাকা পুনরায় তার সাবেক ক্লাব এসি মিলানে যোগ দেন সেখানেও ইঞ্জুরি নামক বাধার দরুন নিজেকে খুজে পাচ্ছিলেন না ঐদিকে মিলান সমর্থকেরা পুনরায় তাদের রাজপুত্রকে হাতে পেয়ে যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছেন। মাঠে নামতে তার দুই মাস লেগে গিয়েছিলো এবং মাঠে নেমেই আবার ইঞ্জুরীতে পড়েন। পরের দিন সাংবাদিক ব্রেফিংয়ে ঘোষনা দেন যতদিন না ঠিক হয়ে মাঠে ফিরতে পারেন ততদিনে কোন বেতন নিবেন না। এসি মিলানকে চ্যাম্পিয়নস লীগ জেতানো এবং নিজের ব্যক্তিগত ব্যালন ডি অর ট্রফি জেতার পরে কাকাই ছিলেন তখন সবথেকে ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার। অফার আসতে থাকে অনেক বড় বড় ক্লাব থেকে। স্পেন থেকে মাদ্রিদ,বার্সা একের পর এক অফার করেই যাচ্ছিলো ঐদিকে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার সিটি তো আরেকধাপ এগিয়ে। ম্যান সিটি থেকে কাকাকে ১০০ মিলিয়ন ইউরো অফার করা হয়। কাজ হচ্ছিলো না দেখে ব্লাঙ্ক পর্যন্ত অফার করা হয়। জেনে রাখা ভালো কাকাই প্রথম ১০০ মিলিয়ন অফার পাওয়া প্লেয়ার এবং প্রথম ব্লাঙ্ক চেক পাওয়াও তিনি। স্যানসিরোর ৮০ হাজার দর্শক যার নাম ধরে জয়োদ্ধনি দেয়, বিশ্বজুড়ে রোজেনারি সমর্থকেরা যাকে নিয়ে নিত্য নতুন স্বপ্ন বুনে, তাদের ভালোবাসায় সিক্ত তাদের রাজপুত্রকে কি কোন দামেই কেনা সম্ভব ?

 

ভক্ত সমর্থকদের দামও দিলেন কাকা আর থেকে গেলেন প্রিয় লাল কালো জার্সিতেই। পরের দিন দেখা গেলো মিলানে তার বাড়ির সামনে লাখ দুয়েক রোজেনারি সমর্থকের বাধ ভাঙ্গা উচ্ছাস আর চিৎকার। ইতালিতে মিলানের অবস্থাটা তখন খুব বেশী একটা ভালো ছিলো না। একে তো টিমের সব সিনিয়র প্লেয়ারপদের একে একে চলে যাওয়া তার উপর মিলানের আর্থিক দুরাবস্থা। ঋন খেলাপী দিনকে দিন বেড়েই যাচ্ছে আর লোনের সাথে সুদ তো আছেই তার উপর ক্লাব প্রেসিডেন্ট সিলভিও বার্লুস্কোনির কেলেঙ্কারী যা মিলানকে আরো খাদের কিনারায় ঠেলে দিয়েছে। সব দিক পর্যালোচনায় মিলান তখন বৈঠা ছাড়া,নাবিক ছাড়া এক টালটল্যমান ভাঙ্গা নৌকা ঠিক যেন মাঝ সমুদ্রে দাঁড়িয়ে। মিলানের এই অবস্থা উত্তরনে মিলান কতৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেন তাদের রাজপুত্রকে বিক্রী করার। কোন কিছুতেই যেন কাকাকে মানানো যাচ্ছিলো না। কাকার সাথে মিলান বোর্ডের একাধিকবার বৈঠক হয়। কাকা চাচ্ছিলেন মিলানে থাকতে আর অন্য কোন সমাধান যেন তারা বের করে।

মন্তব্য করুন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন


শীঘ্রই উদ্ভোদন হতে যাচ্ছে কক্সবাজারের প্রথম সর্বাধুনিক মাল্টি স্পেশেলাইজড হাসপাতাল

বিজ্ঞাপনঃ

কক্সবাজার নিউজ বিডি (সিএনবি)তে ব্যবহৃত সকল সংবাদ ও আলোকচিত্র বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি। স্বত্বাধিকারী কর্তৃক coxsbazarnewsbd.com এর সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (নিবন্ধন নম্বর-১০০৬৮)
Desing & Developed BY MONTAKIM.COM